ঈদের পরে আত্মসমর্পণ করবেন হাজী সেলিম

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ১০ বছরের কারাদণ্ড বহাল থাকায় উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুসরণ করে ঈদুল ফিতরের পর বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য (এমপি) হাজী মোহাম্মদ সেলিম।। সোমবার (২৫ এপ্রিল) এ তথ্য জানিয়েছেন তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাঈদ আহমেদ রাজা।

তিনি বলেন, কারাগার থেকে তিনি এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে নিয়মিত আপিল করবেন এবং জামিন আবেদনও করবেন। অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়েছিল। এ অবস্থায় তিনি এমপি পদে থাকার যোগ্যতা হারিয়েছেন বলে জানিয়েছেন দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান। উচ্চ আদালতে দণ্ড বহাল থাকায় ওই এমপিকে কারাগারে যেতে হবে।

আইনজীবী সাঈদ আহমেদ বলেন, রায়টা আজকে অফিশিয়ালি কমিউনিকেট হয়েছে। এটা এখন বিচারিক আদালতে যাবে। আমাদের ৩০ দিন টাইম দেওয়া হয়েছে। ৩০ দিনের মধ্যে হাজী সেলিমকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে হবে। আমরা বিচারিক আদালতে সারেন্ডার (আত্মসমর্পণ) পিটিশন দেব। আমি আমার ক্লায়েন্ট হাজী মোহাম্মদ সেলিম সাহেবের সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি সবকিছু দেখে ঈদের পরই সারেন্ডার করবেন।

এর আগে, গত ৯ মার্চ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিমকে বিচারিক আদালতের দেওয়া ১০ বছর কারাদণ্ড বহাল রেখে রায় প্রকাশ করেন হাইকোর্ট।রায় প্রদানকারী বিচারপতি মো. মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের স্বাক্ষরের পর এ রায় প্রকাশ করা হয়। গত বছরের ৯ মার্চ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য (এমপি) হাজী মোহাম্মদ সেলিমকে বিচারিক আদালতের দেওয়া ১০ বছর কারাদণ্ডাদেশ বহাল রাখেন হাইকোর্ট। তবে ৩ বছরের দণ্ড থেকে খালাস পান তিনি। রায় ঘোষণার ৩০ দিনের মধ্যে তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়। বিচারপতি মো. মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

Leave a comment

Your email address will not be published.